Pray for the world economy

হিজড়াদের জন্ম কি মাসিক চলাকালে সহবাসের ফলে হয়?

 

অভিযোগঃ

ইসলাম বলে, স্ত্রীলোকের মাসিকের সময় সঙ্গম করলে শয়তান দ্বারা মহিলাটি গর্ভবতী হয়ে যায়। ইসলাম অনুযায়ী হিজড়ারা আসলে শয়তানের সঙ্গমে জন্ম নেয়।

 

জবাবঃ

এ সংক্রান্ত বর্ণনাটি নিম্নে উল্লেখ করা হল।

 

قال الطرطوسي في كتاب تحريم الفواحش باب من أي شيء يكون المخنث حدثنا أحمد بن محمد حدثنا أحمد بن محمد القاضي حدثنا ابن أخي ابن وهب حدثني عمي عن يحيى عن ابن جريج عن عطاء عن ابن عباس قال المخنثون أولاد الجن قيل لابن عباس كيف ذلك قال ان الله عز وجل ورسوله - صلى الله عليه وسلم - نهيا أن يأتي الرجل امرأته وهي حائض فإذا أتاها سبقه إليها الشيطان فحملت فجاءت بالمخنث والله أعلم

অর্থঃ তারতুসী তাঁর ‘তাহরীমুল ফাওয়াহিশ’ গ্রন্থে বলেন, ‘হিজড়া সন্তান কীসের থেকে হয়?’ আমাদেরকে আহমদ ইবন মুহাম্মাদ বলেন, আহমদ ইবন মুহাম্মাদ আল-কাদ্বী বলেন, আমার ভাইপো ইবন ওয়াহাব বলেন, আমার চাচা বর্ণনা করেন, ইয়াহইয়া বর্ণনা করেন, ইবনু জুরাইজ বর্ণনা করেন, আত্বা বর্ণনা করেন,  ইবন আব্বাস(রা.) বলেন, “হিজড়ারা জীনদের সন্তান”।

ইবন আব্বাস(রা.)কে জিজ্ঞাসা করা হলো ”তা কিভাবে হয়?”

 তিনি বললেন, আল্লাহ আয্‌যা ওয়াজাল্লা এবং রাসুলুল্লাহ (ﷺ) পুরুষের জন্য তার স্ত্রীর মাসিক চলাকালে সহবাস করতে নিষেধ করেছেন। যদি এ সময় সে সহবাস করে, তাহলে শয়তান তার আগে সহবাস করে ফেলে স্ত্রীর সাথে। এতে স্ত্রী গর্ভবতী হয় এবং হিজড়া সন্তান জন্ম নেয়। আল্লাহই সর্বোত্তম জানেন।” [1]

 

বর্ণনাটিকে জালালুদ্দিন সুয়ুতি(র.)ও উল্লেখ করেছেন।[2]এ ছাড়া তাফসির রুহুল বায়ানসহ বিভিন্ন তাফসির গ্রন্থেও এটি এসেছে।[3]

 

বর্ণনার সনদের অবস্থাঃ 

আলোচ্য বর্ণনার বর্ণনানাকারীদের মধ্যে ইয়াহইয়া ইবন আইয়ূব আল-গাফিক্বী নামে এক ব্যক্তি রয়েছেন। মুহাদ্দিসদের মতেঃ তিনি অভিযুক্ত ব্যক্তি, দুর্বল।  [4] অতএব এই বর্ণনা মোটেও বিশুদ্ধ নয়।

 

ইসলামি আকিদা আসে শুধুমাত্র কুরআন ও সহীহ হাদিস থেকে। এখানে আলোচ্য বর্ণনাটি সাহাবী থেকেও বিশুদ্ধভাবে প্রমাণিত নয়। কাজেই আমরা বলতে পারি, “হিজড়ারা জিন শয়তানের সন্তান” এমন কথাকে ইসলামী বিশ্বাস বলে অভিহীত করা সঠিক নয়। ইসলামে হিজড়ারা 'শয়তান' নয়, ইসলাম হিজড়াদেরকে ঘৃণা করতে শেখায় না। অন্য সকল মানুষের মতো হিজড়ারাও আদম সন্তান।   

 

 

আরো পড়ুনঃ 

"ইসলাম কি সব ধরনের হিজড়াদেরকে দেশান্তর বা ঘর থেকে বের করে দিতে আদেশ করেছে?" 

 

হিজড়াদের ব্যাপারে ইসলামের বিধান নিয়ে শায়খ ড. সাইফুল্লাহর আলোচনাঃ

https://youtu.be/LD7cre1DCWg

 

ইসলামে হিজড়াদের অধিকার প্রসঙ্গে শায়খ ড. খন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর(র.) এর আলোচনাঃ

https://youtu.be/_mf5jmScR9k

 

 

তথ্যসূত্রঃ

[1] ’আকামুল মারজান ফী আহকামিল জান্ন’ - বদরুদ্দীন শিবলী  ১/৯৩

http://islamport.com/w/amm/Web/2523/93.htm

[2] ‘লাক্বতুল মারজানি ফি আহকামিল জান্ন’ (‘জ্বীন জাতির বিষ্ময়কর ইতিহাস’ শিরোনামে বাংলায় অনূদিত)—জালালুদ্দীন সুয়ূতি, পৃষ্ঠা ৫০, ৫১ 

[3] https://www.altafsir.com/Tafasir.asp?tMadhNo=3&tTafsirNo=36&tSoraNo=55&tAyahNo=56&tDisplay=yes&UserProfile=0&Languageid=1

[4] মীযানুল ই’তিদাল: ৪/৩৬৩, আল-কামিল ফিদ দুআফা: ৭/২১৬